চরফ্যাশনে নিত্যপণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী,বিপাকে ক্রেতারা

0
85

সোহেব চৌধুরী,ভোলা নিউজ২৪ডটনেট।।ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার নিত্যপণ্যের পাইকারি ও খুচরা বাজারে তরিতরকারিসহ মশলাপাতির দাম হটাৎ ঊর্ধ্বমুখী হয়ে উঠেছে। চাল,ডাল,চিনি,ডিম ও গুরো দুধের দাম নির্ধারিত মূল্যের তুলনায় বেশি রাখা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন ক্রেতারা। খুচরা বাজার ব্যাবসায়িরা অসাধু মুনাফা লোভি সিন্ডিকেটকে দায়ি করে বলেন, চরফ্যাশন বাজারের এক শ্রেণীর ব্যাবসায়ি বাজারে নিত্যপণ্যের বিভিন্ন সামগ্রী আমদানি বন্ধের উসিলা দেখিয়ে সংকট সৃষ্টি করে বেশি দামে বিক্রি করছে। যার ফলে আমরা বেশি দামে ক্রয় করে বেশি দামেই বিক্রি করছি। (৭অক্টোবর) সোমবার চরফ্যাশন বাজার ঘুরে দেখা গেছে ৩মুটি লাল শাক ২৫-৩০ টাকা, লাউ বড় ছোট ৫০-৭০ টাকা,বেগুনের কেজি ৫০-৫৫ টাকা, বরবটি কেজি ৪০-৫০ টাকা, মিষ্টি কুমর কেজি ৩৫-৪০ টাকা, আরকি কেজি ৫০ টাকা, করলা কেজি ৪০ টাকা, চাল কুমর কেজি ২০-২৫ টাকা, রেখা বা চিচিঙ্গা কেজি ৪০-৪৫ টাকা,আলু কেজি ১৮-২০টাকা,পিয়াজ কেজি ৭০-৭৫ টাকা, রশুন কেজি ১৬০টাকা, দেশি মশুর ডাল কেজি ১১৫টাকা, ইন্ডিয়ান মশুর ডাল কেজি ৬০টাকা, খোলা ময়দা কেজি ২৮ টাকা, খোলা আটা কেজি ২৮-৩৫ টাকা,চিনি কেজি ৫৮-৬০ টাকা, মুরগি ডিম (ফার্ম) ডজন ১১০-১২০টাকা,এলাচি কেজি ২২,২০-২৩,২০টাকা, চিনিগুরা চাল ১কেজি প্যাক ১১৫-২০টাকা,খোলা চিনিগুরা চাল কেজি ৭০-৯০টাকা, রুপচাঁদা সয়াবিন তৈল লিটার ১০৫ টাকা, তীর সয়াবিন তৈল লিটার ১০০ টাকা, কন্ডেন্স মিল্ক কৌটা ৪৬-৫০ টাকা,ডানো গুরোঁ দুধ ৫শ গ্রাম ২১৫ টাকা, ২শ গ্রাম ১১০ টাকা, লেকটজেন (১) ৪০০ গ্রাম কৌটা ৬০০ টাকা, ৩৫০গ্রাম প্যাকেট ৪৮০ টাকা, ১৮০গ্রাম প্যাকেট ২২৫টাকায় বিভিন্ন দোকান ভেদে বিক্রি হচ্ছে। বাজার ঘুরে আরোও দেখা যায় পাশাপশি দোকানেই ৭০ ও ৭৫ টাকায় পেয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে বেশি দামে বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে ভোরের কাগজ প্রতিবেদককে দোকানদার তারেক বলেন, আমদানি কম থাকায় এবং বেশি দামে ক্রয় করেছি ফলে বেশি দামেই বিক্রি করছি। এ বিষয়ে বাজার ব্যাবসায়ি সমিতির সভাপতি মনির উদ্দিন চাষি বলেন, ব্যাবসায়িদের যার যেমন কিনা সে ঐ দামের ১০% লাভে বিক্রি করছে এর বাহিরে যারা বেশি মূল্য রাখে আমরা অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিবো। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন বলেন, আমরা বাজার মনিটরিং এর জন্য খুব দ্রুতই ব্যবস্থা নিবো।

LEAVE A REPLY