ভোলায় দুই ধর্ষক পুলিশের সঙ্গে‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

0
782

রাকিব উদ্দিন অমি,ভোলা নিউজ২৪ডটনেট।।    ভোলায় চাঁদরাতে মেহেদি দিয়ে হাত রাঙাতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার ষষ্ঠশ্রেণির ছাত্রীর দুই ধর্ষক পুলিশের সঙ্গে‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন। ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহতদুই ব্যক্তি স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার প্রধান দুই আসামী ছিলেন।

 মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে ভোলা সদরউপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডেরদক্ষিণ রাজাপুর এলাকার নদীর তীর সংলগ্নএলাকায় পুলিশের সঙ্গে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনাঘটে। নিহতরা হলেন- সদর উপজেলারচরসামাইয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সৈয়দআহম্মেদের ছেলে আল আমিন (২৫) ও কামালমিস্ত্রির ছেলে মঞ্জুর আলম (৩০)। পরে তাদেরমরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায় পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভোলা মডেল থানার ওসি ছগির মিয়া বলেন, মঙ্গলবার রাতআড়াইটার দিকে রাজাপুর ইউনিয়নের ৪নংওয়ার্ডের দক্ষিণ রাজাপুর এলাকায় স্কুলছাত্রীগণধর্ষণ মামলার আসামীদের ধরতে গেলেপুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময়আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে পুলিশ। এতেগণধর্ষণ মামলার প্রধান দুইআসামী নিহত হয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’  নিহত দুই ব্যক্তি চরসামাইয়া এলাকার ‘স্কুলছাত্রী’ গণধর্ষণ মামলার আসামী আল আমিন ও মঞ্জুরআলম। চাঁদরাতে মেহেদি দিয়ে সাজতে গিয়ে তাদের হাতে গণধর্ষণের শিকার হয় ষষ্ঠ শ্রেণিরওই ছাত্রী। নিহতদের মরদেহ ভোলা সদরহাসপাতালে রয়েছে।

গণধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার উপজেলারচরসামাইয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডেরচরসিফলি গ্রামের এক কৃষক ঈদ উপলক্ষে তার আদরের দুই মেয়ের জন্য বাজার থেকে মেহেদি কিনে আনেন।

রোববার (১১ আগস্ট) সন্ধ্যার দিকে তাদের বাবা গরু বিক্রি করার টাকা আনতে ভোলা শহরে যান। বাবা শহরে চলে যাওয়ার পর দুই বোন রাত৮টার দিকে প্রতিবেশী দুঃসম্পর্কের আত্মীয় মাহফুজের স্ত্রীর কাছে হাতে মেহেদি দিয়ে সাজতে যায়। ওই সময় আগে থেকে অপেক্ষমাণ মাহফুজের ঘরের ভাড়াটিয়া আল আমিন ষষ্ঠশ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুলছাত্রীকে ডেকে তার ঘরে নিয়ে যায়। এ সময় আলমিনের স্ত্রী ঘরে ছিল না।এ সুযোগে ওই ছাত্রীকে আলামিন ও তার সহযোগী মঞ্জুর আলম হাত-পা ও মুখে কাপড় বেঁধে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে ছাত্রীর চিৎকারে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধারকরে মুমূর্ষু অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালেভর্তি করা হয়। গোপনাঙ্গে থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় পরে ওই ছাত্রীকে সোমবার ঈদের দিন বরিশালের শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়( শেবাচিম) হাসপাতালে পাঠানো হয়।

LEAVE A REPLY