আবারো ভোলার মেঘনা ও তেতুলিয়া নদী জেলেদের কোলাহলে মুখরিত

0
125

মোঃ আফজাল হোসেন ॥ ভোলার মেঘনা ও তেতুলিয়া নদী দীর্য ২২দিন পর আবারো পুরনো রুপ ফিরে পেয়েছে। জেলেদের পদচারনায় মুখরিত মৎস আড়ৎগুলো। জেলেদের জালে ধরা পরছে প্রচুর ইলিশ।তবে এখনো ইলিশের পেটে প্রচুর ডিম রয়েছে বলে জানিয়ে জেলেরা বল্লেন আরো ১০দিন পর অভিযান দিলে ইলিশের ডিস ছাড়া শেষ হত। তবে প্রচুর ইলিশ ধরা পরায় তারা বেশ খুশি।
আজ থেকে ভোলার মেঘনা ও তেতুলয়িা নদীতে ইলিশ মাছ ধরার উপর যে নিষেঞ্জা ছিলো তা প্রত্যাহার হয়েছে। যে কারনে জেলার লাখো জেলে উৎসাহ নিয়ে জাল হাতে নেমে পরেছে নদীতে। যদিও তারা এক;িন আগে ২৮অক্টোবর সকাল থেকেই নদীতে মাছ ধরা শুরু করে দিয়েছে। সবকিছুর পরেও বেশ আনন্দ জেলেরা।গতকাল ভোলার তুলাতলী মাছ ঘাটে গিয়ে দেখা যায়,একের পর একটি মাছ ধরার ট্রলার ঘাটে ভিরছে আর জেলেরা ঝুড়ি বোঝাই করে ইলিশ মাছ নিয়ে আড়তের দিকে ছুটছে। তাদের যেন সময় নেই দম ফেলার।

জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পরায় যে যার মত করে ব্যস্ত হয়ে পরেছেনে মাঝ ধরতে। আড়তদার জসিম জানান,গতকাল ২৮ অক্টোবর প্রচুর ইলিশ ধরা পরায় দাম ছিলো খুবই কম,তবে সেই তুলনায় আজকের একটু কম। ইলিশের পেটে এখনো ডিম রয়েছে। অপর এক জেলে বলেন,আরো ১০দিন পর অভিযান দিলে সবচেয়ে বেশি ভালো হত। এখনো ইলিশের পেটে প্রচুর ডিম রয়েছে। যদিও এবিষয়টি নিয়ে খোদ জেলেদের মধ্যেই রয়েছে মত বিরোধ।

এছাড়া ইলিশা ঘাটের লিটন মাঝি বলেন,এবছর বেশ ভালো মাছ পেয়েছি। তবে দাম সেই তুলনায় কম। পাচ্ছি। নদীতে ডাকাত না থাকলে আর চিন্তা ছিলো না। এদিকে কোস্টগার্ড দক্ষিন জোনের এক সংবাদ সম্মেলনে তাদের সফলতা তুলে ধরেছেনে। বলেছেনে গত ২২দিনে ৪৭২জন জেলেসহ ৮০টি মাছ ধরার ট্রলার আটক করেছে। এছাড়া কোটি কোটি টাকার জাল,মাছ জব্দ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY